cool hit counter
সর্বশেষ প্রকাশিত

নবজাগরণে ঠাকুরবাড়ির মেয়ে-বউরা ৪

পৌলমী দাশ গুপ্ত

প্রতিভা দেবী
প্রতিভা দেবী

এইবার বলি গুণী শিল্পী প্রতিভা দেবীকে নিয়ে। ঠাকুরবাড়ি যার প্রতিভা আলোকে আলোকিত হয়েছিল তিনি হেমেন্দ্রনাথের মেয়ে ও নীপময়ি দেবীর মেয়ে প্রতিভা দেবী।

সংগীত ক্ষেত্রে প্রতিভা’র সবচেয়ে বড় অবদান হল স্বরলিপি রচনার সহজতম পথ আবিস্কার। নাটক ‘বাল্মিকীপ্রতিভা’ ও ‘কালমৃগয়া’র গানগুলোর প্রথম স্বরলিপিকার হচ্ছেন তিনি।

গানের স্বরলিপি রচনাই নয় শুধু, গানের চর্চার জন্য তিনি ‘সংগীত-সংঘ’ নামে একটি স্কুল স্থাপন করেন। এই স্কুলে ওস্তাদি গানের পাশাপাশি যন্ত্র সংগীত ও শেখানো হত।

প্রতিভা দেবী তাঁর সময়ের সেরা আলোটুকু পান ‘বাল্মিকীপ্রতিভায়’ অভিনয় করে। ১৮৯৩ সালে লেডী ল্যান্সডাউনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এই নাটকের সরস্বতির ভূমিকায় অভিনয় করে গণ্যমান্য ইংরেজ সাহেব মেমদের চোখে তাক লাগিয়ে দেন। গান শেখানোর পাশাপাশি তিনি একটি সংগীত পত্রিকা খোলার কথাও ভাবেন। পত্রিকার নাম দেন ‘আনন্দ সংগীত পত্রিকা’, এই পত্রিকায় শুধুমাত্র স্বরলিপি প্রকাশিত হত এমন নয়, প্রতিভা দেবী একইসঙ্গে লুপ্ত সংগীত পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চালাতেন। তাছাড়াও প্রাচীন সংগীত শিল্পীদেরও বিস্মৃতির অন্তরাল থেকে উদ্ধার করতে লাগলেন।

গুণবতী এই মেয়েটির মৃত্যুর পর ‘সংগীত সঙ্ঘের’ পুরস্কার বিতরণী সভায় কাকা রবীন্দ্রনাথ বলেছিলেন, ‘সংগীত যে শুধু তাঁর কন্ঠে আশ্রয় নিয়েছিল তা নয়, এ তাঁর প্রাণকে পরিপুর্ণ করেছিল। এরই মাধুর্যপ্রবাহ তাঁর জীবনের সমস্ত কর্মকে প্লাবিত করেছে।‘

Check Also

ইতিহাসের বিধ্বংসী ভূকম্পন

ভয়াবহ ভূকম্পনে কেঁপে উঠল নেপালসহ ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং চীনের অনেকটা অংশ। ভূমিকম্পের উৎসস্থল নেপাল৷ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *